নলতায় ঈদের ময়দানে মসজিদে দান করতে চাওয়ায় সভাপতির বাঁধা: বিবাদের সৃষ্টি

সিটিভি নিউজ।।  তরিকুল ইসলাম লাভলু   নিজস্ব প্রতিনিধি: সাতক্ষীরা জেলার কালিগঞ্জ উপজেলার নলতার ইন্দ্রনগর হুসাইনিয়া জামে মসজিদে মসজিদের উন্নয়ণ কল্পে দান করতে চাওয়ায় শনিবার ঈদের নামাজের পর মসজিদ কমিটির সভাপতির সাথে স্থানীয় মুসল্লিসহ যুবকদের সাথে বিবাদের সৃষ্টি হয়।
স্থানীয় যুবক আশরাফুল, সাইফুদ্দিন, মাহফুজ, খায়রুল, সাদ্দাম, শরিফুল  বলেন, মসজিদের বিভিন্ন উন্নয়ণ কাজ হলেও মসজিদের মিনার এবং গম্বুজ করার জন্য ফেলে রাখা কাজ দীর্ঘদিন যাবত অসমাপ্ত অবস্থায় পড়ে আছে এবং ক্ষতিগ্রস্থও হচ্ছে। উক্ত কাজ সমাপ্ত করার জন্য এলাকার যুবকেরা একত্রিত হয়ে মসজিদের মিনার স্থাপনের উদ্দ্যেগ গ্রহণ করে। এবং এ ব্যাপারে মসজিদ কমিটির উপদেষ্টা সদস্য মোনাজাত আলী শেখ ও মুক্তিযোদ্ধা আনছার আলী বিশ^াস এবং সহ-সভাপতি সওকাত আলী পাড় ও সোহরাব হোসেনের সাথে পরামর্শ করলে যুবকদের এ কাজে সাধুবাদ জানায় ও তাদের কাজে সহযোগিতা করার আশ্বাসও প্রদান করেন। শনিবার ঈদের নামাজের আগে যুবকেরা মসজিদের খতিব মাওঃ খলিলুর রহমানকে জানায় যে, আমরা যুবকরাই মসজিদের মিনার এবং গম্বুজের কাজ  সমাপ্ত করে দেব এ জন্য আপনি মসজিদে এটি ঘোষনা দিয়ে দেন এবং মুসল্লিদের আমাদের জন্য দোয়া করতে বলবেন । খতিব সাহেব নামাজ এবং খুতবা  শেষ করে দোয়া মোনাজাতের পূর্বে যখনি একথাটি ঘোষনা করা শুরু করেন তখনি মসজিদের সাবেক ইমাম মাওঃ মারুফ বিল্লাহ তাকে থামিয়ে দিয়ে বলেন, সভাপতি সাহেব এ ঘোষনা দিতে নিষেধ করেছেন। তখন খতিব সাহেব আর ঘোষণা না দিয়ে দোয়া মোনাজাত করেন । তৎক্ষণাত মুসুল্লিদের মধ্যে মিশ্র পতিক্রিয়া দেখা দেয়। মোনাজাত শেষ করে যুবকেরা ও মুসল্লিরা তখনি মসজিদের বাহিরে এসে সহ-সভাপতি শওকাত আলী পাড়কে অবহিত করলে খতিব সাহেব মসজিদের বাহিরে আসলে তিনি খতিব সাহেবের নিকট বিষয়টি জানতে চান । খতিব সকল কথা বলার সাথে সাথে মুসুল্লিরা মসজিদ কমিটির সভাপতি নুর ইসলাম গাজী যুবকদের মসজিদের উন্নয়ন কাজ করতে দেবে না বলায় তার উপর ক্ষিপ্ত হয় এবং নুর ইসলাম গাজীর সাথে তর্ক বিতর্কের এক পর্যায়ে সংঘর্ষের সৃষ্টি হয় এবং যুবকসহ মুসল্লিরা সভাপতিকে পদত্যাগের দাবি করে। একপর্যায়ে পরিস্থিতি মারাত্মক সংঘর্ষের দিকে গড়ালে সহ-সভাপতি সওকাত হোসেন পাড় সহ অন্যান্য গণ্য মান্য ব্যক্তিদের সহযোগিতায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আসে। সকল মুসল্লি চলে যাওয়ার পর মসজিদের সভাপতি নুর ইসলাম গাজীর পক্ষ হয়ে গ্রেফতারকৃত রাজাকার আকবর আলীর বড় পুত্র মহিব্বুল্লাহ হুংকার দিয়ে বলে যে, মসজিদের উন্নয়নে যুবকদের সমপৃক্ত করা যাবে না এবং তাদের কয়েকজনের যদি যবেহ করতে পারতাম তাহলে শান্তি পেতাম । এ কথা বাহিরে প্রকাশ হওয়ার সাথে সাথে সাধারণ মানুষের মাঝে একটা ক্ষোভ বিরাজ করছে। এবং মহিবুল্লাহর হুমকিতে তারা আতঙ্কে আছে বলে স্থানীয় যুবকেরা জানিয়েছেন।সংবাদ প্রকাশঃ  ০২২০২০ইং (সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে দয়া করে ফেসবুকে লাইক বা শেয়ার করুন) (If you think the news is important, please share it on Facebook or the like সিটিভি নিউজ@,CTVNEWS24   এখানে ক্লিক করে সিটিভি নিউজের সকল সংবাদ পেতে আমাদের পেইজে লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুনসিটিভি নিউজ।। See More =আরো বিস্তারিত জানতে লিংকে ক্লিক করুন=

Print Friendly, PDF & Email