ব্রাহ্মণপাড়ায় মুক্তিযুদ্ধা পরিবারের উপর হামলা বাড়িঘর ভাংচুর, থানায় মামলা

সিটিভি নিউজ।।   আনোয়ারুল ইসলাম  সংবাদদাতা জানান  ======
কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার আসাদনগর গ্রামে এক মুক্তিযুদ্ধা পরিবারের উপর হামলা ও বাড়িঘর ভাংচুর এবং লুটপাটের অভিযোগে পাওয়া গেছে। এঘটনায় বীর মুক্তিযোদ্ধার ছেলে মোঃ নজরুল ইসলাম সফিক গত ২২ জুন রাতে ব্রাহ্মণপাড়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।
মামলার এজার ও আহত সূত্রে জানা গেছে, ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার মালাপাড়া ইউনিয়নের আসাদনগর গ্রামের সেবারাফের বাড়ির (অবসর প্রাপ্ত সুবেদার) বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল জলিলের ভাতিজা বাবুল হোসেনের সাথে রাস্তার জায়গা নিয়ে একই বাড়ির আমির হোসেন গংদের দীর্ঘদিন যবত বিরোধ চলে আসছিলো।
গত ৮ জুন ঘটনার দিন সকালে বাবুল হোসেন তাহার পূর্বে নির্মত দেওয়াল বর্ধিত করিতে গেল একই বাড়ির জাকির হোসেনের ছেলে মুসা প্রকাশ শান্ত ও শের আলী মনিরের ছেলে মিজান আমার চাচাত ভাইকে গালমন্দ ও হুমকি দমকি দিতে থাকে এবং এক পযার্য়ে তাহার নির্মিত দেওয়ালটি ভেঙ্গে ফেলে, তখন বাবুল হোসেন প্রতিবাদ করলে তাহার উপর হামলা চালায় এবং মারধর করে। তাহার শোর চিৎকারে (অবসর প্রাপ্ত সুবেদার) মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল জলিলের ছেলে ও মামলার বাদী নজরুল ইসলাম সফিক এগিয়ে গেলে পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে উৎপেতে থাকা আবদুল লতিফের ছেলে আমির হোসেন, আবদুল অহেদ এর ছেলে মোঃ হারুন, তাহার ভাই আরিফ হোসেন, আবদুল লতিফের ছেলে শের আলী মনির, তার ভাই বাকির হোসেন, জাকির হোসেনের ছেলে মুসা প্রকাশ শান্ত, আবদুল করিমের ছেলে রাজন, শের আলী মনিরের ছেলে মিজান, জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে জাহিদ এবং মৃত সহিদ মিয়ার ছেলে আরিফ হোসেন তাদের হাতে দেশীয় তৈরি দা, ছেনা লাঠি লোহার রড নিয়ে আমার চাচাত ভাই বাবুল হোসেনের বাড়িতে হামলা চালিয়ে বাবুল হোসেনের একটি বসতঘর এবং আমাদের দুইটা বসতঘর ভাংচুর এবং লুটপাট করে। তাদের হামলায় আমি এবং আমার চাচাত ভাই শফিকুল ইসলামের ছেলে বাবুল হোসেন তাহার স্ত্রী ফাহিমা আক্তার এবং তাহার বাবা সফিকুল ইসলাম গুরত্বর আহত হয়। আমাদের ডাক চিৎকারে এলাকাবাসী এগিয়ে এলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। পরে এলাকাবাসী আহতদের উদ্ধার করে ব্রাহ্মণপাড়া হাসপাতালে ভর্তি করে।
এব্যাপারে মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল জলিলের ছেলে নজরুল ইসলাম সফিক জানান, এ ঘটনার আমি বাদী হয়ে ১০ জনকে অভিযোক্ত করে ব্রাহ্মণপাড়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেছি এবং দোষকৃতিকারীদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি। এব্যপারে মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা ব্রাহ্মণপাড়া থানার এসআই সফিকুল ইসলাম জানান, ঘটনার দিন জায়গা সম্পত্তি বিরোধে হামলার ঘটনা ঘটে এবং তিনটি বসত ঘর ভাংচুর করা হয়। এ ব্যপারে অভিযুক্তদের বাড়িতে গিয়েও তাদেরকে পাওয়া যায়নি।সংবাদ প্রকাশঃ  ২৫২০২০ইং (সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে দয়া করে ফেসবুকে লাইক বা শেয়ার করুন) (If you think the news is important, please share it on Facebook or the like সিটিভি নিউজ@,CTV NEWS24   এখানে ক্লিক করে সিটিভি নিউজের সকল সংবাদ পেতে আমাদের পেইজে লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুনসিটিভি নিউজ।। See More =আরো বিস্তারিত জানতে লিংকে ক্লিক করুন=

Print Friendly, PDF & Email