রেদোয়ানের নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে কুমিল্লায় এলডিপির সংবাদ সম্মেলন

সিটিভি নিউজের ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন

সিটিভি নিউজ।।     নিজস্ব প্রতিবেদক, কুমিল্লা———–==কুমিল্লার চান্দিনায় স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগের দুই কর্মীকে গুলি করার ঘটনায় হওয়া হত্যাচেষ্টা মামলায় কারাগারে থাকা লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) কেন্দ্রীয় মহাসচিব ড. রেদোয়ান আহমেদের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেছে দলের নেতারা। একই সঙ্গে তাঁর বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলাকে ‘সরকারের হয়রানিমূলক মামলা’ বলে দাবি করে সেটিও প্রত্যাহারের দাবি করেছে দলটির কুমিল্লা উত্তর জেলার নেতারা।
বুধবার বিকেলে কুমিল্লা নগরীর রাজগঞ্জ এলাকার একটি পার্টি সেন্টারে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এই দাবি জানান তাঁরা। এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন এলডিপির কুমিল্লা উত্তর জেলা শাখার সভাপিত মো.সামছুল হক মাস্টার। এ সময় এলডিপির চান্দিনা উপজেলার শাখার সাধারণ সম্পাদক মো.আবু তাহের, কোষাদক্ষ্য জাহাঙ্গীর আলম, মহিচাইল ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক হুমায়ুন কবির, গণতান্ত্রিক যুবদল চান্দিনা পৌরসভা শাখার সাধারণ সম্পাদক জামশেদ আহমেদ জাকিসহ দলের বিভিন্ন স্তরের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।
লিখিত বক্তব্যে মো.সামছুল হক মাস্টার বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা ড. রেদোয়ান আহমেদ দেশের শীর্ষ রাজনীতিবিদ। তিনি কুমিল্লা-৭ (চান্দিনা) আসন থেকে চারবার নির্বাচিত সংসদ সদস্য ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সাবেক প্রতিমন্ত্রী। গত সোমবার চান্দিনায় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগ হামলা চালিয়ে তাঁর গাড়ি ও পার্টি অফিস ভাঙচুর করেছে। এছাড়া তাঁর বাড়িতে বর্বোরচিত হামলা চালিয়ে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে অশোভন আচরণ করেছে। এ ঘটনার পর আত্মরক্ষার্থে ড.রেদোয়ান আহমেদ চান্দিনা থানায় আশ্রয় নিতে গেলে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে। এরপর মিথ্যা মামলা দিয়ে কারাগারে পাঠায়। আমরা এ ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ, তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।
তিনি আরও বলেন, এলডিপি মহাসচিবের উপর এমন নেক্কারজনক হামলার ঘটনায় আবারও প্রমাণিত হলো দেশে এখন ফ্যাসিবাদী ও সন্ত্রাসীদের কর্তৃত্ব চলছে। বর্তমান সরকার যে সন্ত্রাস নির্ভর এ হামলার ঘটনায় সেটা স্পষ্ট হয়েছে। আমরা অবিলম্বে ড. রেদোয়ান আহমেদসহ সকল নেতাকর্মীদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানাচ্ছি এবং দোষীদের দ্রুত গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করছি। পাশাপাশি সরকার দলীয় লোকজনের দায়ের করা হয়রানিমূলক মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানাচ্ছি।
প্রসঙ্গত, সোমবার চান্দিনা উপজেলা সদরের ‘রেদোয়ান আহমেদ কলেজ ক্যাম্পাস-২’-এর মমতাজ আহমেদ ভবনের সামনে এলডিপি ও ছাত্রলীগ-স্বেচ্ছাসেবক লীগ পাল্টাপাল্টি ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। ওইদিন দুপুর থেকে ছাত্রলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতাকর্মীরা সেখানে অবস্থান নেন। দুপুর সোয়া ২টার দিকে রেদোয়ান আহমেদ গাড়ি নিয়ে এলে কলেজের গেটে ছাত্রলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতারা গাড়ি থামিয়ে তাঁর সঙ্গে কথা বলেন। কিছুক্ষণ পর দুপুর আড়াইটার দিকে রেদোয়ান আহমেদ গাড়ি ঘুরিয়ে চলে যাওয়ার সময় স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগ কর্মীরা ওই গাড়িতে তরমুজের টুকরো ও ঢিল ছোড়েন। এ সময় রেদোয়ান আহমেদ পর পর দু’টি গুলি ছুড়ে দ্রুত চলে যান। এরপর স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের ধাওয়া খেয়ে রেদোয়ান চান্দিনায় থানায় আশ্রয় দিলে পুলিশ তাকে আটক করে। অভিযোগ উঠেছে, রেদোয়ানের ছোড়া গুলিতে চান্দিনা পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সদস্য মাহমুদুল হাসান সরকার জনি (২২) এবং উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের কর্মী ও স্থানীয় চান্দিয়ারা গ্রামের নাজমুল হোসেন নাঈম (২৮) গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। এ ঘটনায় রেদোয়ান আহমেদসহ ১৫ জনের নাম উল্লেখ করে সোমবার বিকেলে থানায় হত্যা চেষ্টা মামলা দায়ের করেন চান্দিনা পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা কাজী আখলাকুর রহমান জুয়েল।
মামলার বাদী কাজী আখলাকুর রহমান বলেন, আমরা রেদোয়ান আহমেদের শাস্তি চাই। ছাত্রলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের কর্মীদের হত্যার উদ্দেশ্যে তিনি গুলি চালিয়েছিলেন। এটা কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। এটা সম্পূর্ণ পরিকল্পিত ঘটনা।

ছবি: মহাসচিব ড. রেদোয়ান আহমেদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে কুমিল্লায় এলডিপির সংবাদ সম্মেলন।

সংবাদ প্রকাশঃ  ১১-০-২০২২ইং সিটিভি নিউজ এর  (সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে দয়া করে ফেসবুকে লাইক বা শেয়ার করুন) (If you think the news is important, please share it on Facebook or the like  See More =আরো বিস্তারিত জানতে ছবিতে/লিংকে ক্লিক করুন=  

Print Friendly, PDF & Email