মিথ্যা সংবাদ পরিবেশন করে শিক্ষা মন্ত্রী ও সরকারি কর্মকর্তাদের সুনাম ক্ষুন্ন করা হচ্ছে কার স্বার্থে

সিটিভি নিউজের ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন

সিটিভি নিউজ।। সংবাদদাতা জানান ===    চাঁদপুর হাইমচর উপজেলাধীন নীল কমল ইউনিয়নের আওতাধীন, তাজপুর, সোনাপুর, প্রকাশ্যে বাহেরচর মৌজা এলাকার কতিপয় ভূমি নিয়ে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষামন্ত্রীকে নাজেহাল করার জন্যই উঠেপড়ে লেগেছে মন্ত্রীর প্রতিপক্ষ একটি চক্র।  প্রকৃত ঘটনাকে আড়াল করে মনগড়া বানোয়াট উদ্দেশ্যে প্রণোদিত সংবাদ বিভিন্ন জাতীয় সংবাদপত্রে সংবাদ প্রকাশ করে শিক্ষা মন্ত্রী ও তার পরিবারের সদস্যদের ভাবমূর্তি নষ্ট করছে।  অপরদিকে হয়রানি করা হচ্ছে কতিপয় সরকারি ব্যক্তি বিশেষ কে ।  চাঁদপুর হাইমচর এলাকায় স্থানীয়ভাবে সরেজমিনে ঘুরে জানা যায় যে ১৯৫০-৫৫ এর দিকে উল্লেখিত ভূমি নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যায়।  পরবর্তীতে ১৯৭০ সালে বিলীন হয়ে যাওয়া একই জায়গায় চর জাগে বিলীন হয়ে যাওয়া ভূমি হারা মালিকরা নকশার মাধ্যমে চিহ্নিত করে তাদের চরের জমির দখল বুঝে নেন।  ৪/ ১৯৭৭/৭৮ সালে সরকার উল্লেখিত ভূমিকে খাসজমি হিসেবে ঘোষণা করে।   ভূমির প্রকৃত মালিকরা সরকারের এই আদেশের বিরুদ্ধে চাঁদপুর দেওয়ানী আদালতে দেওয়ানী মামলা দায়ের করে মামলা নং ২২/১৯৮৪ মামলার বাদী মেহের আলী মৃধা।  বিবাদী করা হয় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার পক্ষে চাঁদপুর জেলা প্রশাসকসহ ৩৭ জন কে বিবাদী করা হয়েছে।   ৬/৫/ ১৯৮৭ সালে বিজ্ঞ আদালত সরকারি খাসজমির আদেশটির বিরুদ্ধে রায় প্রদান করেন যে ভূমিগুলো খাস করা হয়েছিল সেই আদেশ বলে বাতিল করে উল্লেখিত ভূমি সমূহ ব্যাক্তি মালিকানাধীন সম্পতি হিসেবে আদেশ প্রদান করা হয়।  উক্ত আদেশের বিরুদ্ধে সরকার পক্ষ কোন আপিল করেননি পরবর্তীতে সহকারী কমিশনার ভূমি ১৮/৮/২০১৬ ইং এক আদেশ নামায় হাইমচর চাঁদপুর বিজ্ঞ আদালতের আদেশ মতে উল্লেখিত সম্পত্তিগুলো ব্যক্তিমালিকানা সম্পত্তি বলে উল্লেখ করে এক নির্দেশনা প্রদান করেন পরবর্তীতে প্রকৃত ভূমির মালিকরা তাদের নামে খতিয়ান সৃজন করে বসবাস করতে থাকে।   এরইমধ্যে চাঁদপুর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় উল্লিখিত ভূমিতে স্থাপিত হবে জেনে শিক্ষা মন্ত্রীর প্রতিপক্ষ একটি মহল একের পর এক আজগুবি সংবাদ প্রকাশ করছে। যা অসৎ উদ্দেশ্য প্রনোদিত। এই ঘটনার নিন্দা জানিয়েছেন সূশীল সমাজের মানুষ।

সংবাদ প্রকাশঃ  ০৮-০-২০২২ইং সিটিভি নিউজ এর  (সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে দয়া করে ফেসবুকে লাইক বা শেয়ার করুন) (If you think the news is important, please share it on Facebook or the like  See More =আরো বিস্তারিত জানতে ছবিতে/লিংকে ক্লিক করুন=  

Print Friendly, PDF & Email