মশার যন্ত্রণা থেকে বাঁচতে কিছু ঘরোয়া উপায়

সিটিভি নিউজ।। লাইফস্টাইল।।   বর্ষায় মশা-মাছির উপদ্রব বেড়ে যায়। সেই অনুযায়ী, বেড়ে যায় রোগ-ব্যাধিও। এ সময় মশার ধূপ, ওষুধ, কয়েল, স্প্রে- নানা রকম উপায়ে মশা তাড়ানোর চেষ্ঠা করি আমরা। কিন্তু গাদা গাদা গাদা খরচ করেও অনেক সময় কোনো লাভ হয় না। তাহলে কিভাবে বাঁচা যায় মশার যন্ত্রণা থেকে? এ থেকে বাঁচতে জেনে নিন কিছু ঘরোয়া উপায়।

চলতি বছরে বাংলাদেশে ডেঙ্গু নিয়ে ৩১ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এর মধ্যে জুলাই মাসে ১২ জন ও আগস্টে ১৯ জন মারা গেছেন। গত বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের দেওয়া প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত বুধবার থেকে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত শনাক্ত ২৭০ জনের মধ্যে ৩০ জন ঢাকার বাইরে এবং বাকি ২৪০ জন ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।
এ নিয়ে সারা দেশে চলতি বছরে ডেঙ্গু নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা দাঁড়ায় ৭ হাজার ২৫১ জনে। তাদের মধ্যে ৪১৬ জন ঢাকার বাইরে বিভিন্ন জেলায় আক্রান্ত হয়েছেন।
চলতি আগস্টে ডেঙ্গুতে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ৫৯৩ জনে। এর আগে জুলাই মাসে ২ হাজার ২৮৬ জন, জুন মাসে ২৭২ জন ও মে মাসে ৪৩ জন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছিল বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এদিকে গতকাল শুক্রবার ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) উর্দু বিভাগের ছাত্রী শারমিন আক্তার মারা গেছেন ।
মশার যন্ত্রণা থেকে বাঁচতে কিছু ঘরোয়া উপায়ের কথা জানিয়েছে ভারতের আনন্দবাজার পত্রিকা। এগুলো হলো –
ঘরের কোণে কর্পূর রাখা
মশার ধুপ সারাদিন না জ্বালাতে চাইলে ঘরের কোণে কর্পূর রাখতে পারেন। যে টেবিলে বসে সারা দিন কাজ করছেন বা খাটের পাশে রাখা টেবিলে রেখে দিতে পারেন, কিছুটা কাজ দেবে।
ফ্যান চালানো
শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ঘরে বসে থাকলে ফ্যান চালান। কারণ ঘরে জোরে ফ্যান চালিয়ে রাখলেও গায়ে খুব একটা মশা বসার সুযোগ পায় না। ফ্যানের জোর হাওয়ায় মশা খুব একটা উড়তে পারে না।
জল জমতে না দেওয়া
বাড়ির আশেপাশে বেশি জল জমে থাকলে বাড়িতে মশাও বেশি হবে। ছাদের কোণে ব়ৃষ্টির জল জমছে কিনা খেয়াল রাখুন। বাথরুমে অহেতুক জল জমিয়ে রাখবেন না। যদি রাখতেই হয়, ঢাকনা দেওয়া বালতি ব্যবহার করুন। বাগান, বারান্দা বা ছাদে কোনো খালি গাছের টব রাখা থাকলে সেগুলো উল্টে রাখুন। বাড়ির বাইরে ময়লা ফেলার বালতি থাকলে সেগুলোতে জল জমে থাকছে কি না খেয়াল রাখুন।সংবাদ প্রকাশঃ  ১০-৯-২০২১ইং । (সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে দয়া করে ফেসবুকে লাইক বা শেয়ার করুন) (If you think the news is important, please share it on Facebook or the like  See More =আরো বিস্তারিত জানতে ছবিতে অথবা লিংকে ক্লিক করুন=  

Print Friendly, PDF & Email