ব্রাহ্মণপাড়ায় আনসার ও ভিডিপি কর্মকর্তার সদস্যদের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ

সিটিভি নিউজের ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন
সিটিভি নিউজ।।  সৌরভ মাহমুদ হারুন    ব্রাহ্মণপাড়া  (কুমিল্লা)  প্রতিনিধি ===========
কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা আনসার ও ভিডিপি কর্মকর্তা নাজিউল রহমান ও ৮ ইউনিয়নের সকল দল নেতা এবং দল নেত্রীর বিরুদ্ধে ইউপি নির্বাচনে ১ হাজার ৩২৬ জন সদস্যদের কাছে থেকে মোটা অংকের টাকা পাইয়ে দেওয়ার লোভ দেখিয়ে  লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়ার অবিযোগ পাওয়া গেছে। এঘটনায় গতকাল সোমবার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ডিউটি করা আনসার সদস্যদের ভাতা নিতে আসলে ৫ হাজার টাকার স্থলে  ২ হাজার ১৯০ টাকা দেয়ায় স্থলের বিড়াল বেরিয়ে আসে।আর তখন আনসার সদস্যরা উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গনে হট্ট গোল ও শোর চিৎকার শুরু করলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোহেল রানা ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মুহাম্মদ আবু জাহেরের নজরে আসলে বিষয়টি আমলে নেন। সকল আনসার ও ভিডিপ সদস্যদেরকে উক্ত বিষয়ে লিখিত অভিযোগ দেয়ার বলেন এবং এ বিষয়ে  তিনি সুষ্ঠু তদন্তপূর্বক জড়িতদের শাস্তির আওতায় আনার আশ্বাস দিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করেন।  সংশ্লিষ্ট অফিস ও ক্ষতিগ্রস্তদের সূত্রে জানা গেছে, ২৬ ডিসেম্বর ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার ৮টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে উপজেলার ১ হাজার ৩২৬ জন আনসার ও ভিডিপি সদস্য নির্বাচনকালীন চারদিন দায়িত্ব পালন করেন। নির্বাচনে দায়িত্ব পালনের জন্য শুরুতে ৪-৫ হাজার টাকা ভাতা প্রদানের আশ্বাস দিয়ে সদস্য অন্তর্ভুক্ত করা হয়। উপজেলা আনসার ও ভিডিপি কর্মকর্তা নাজিউল রহমান ও আনসার ও ভিডিপি অফিসের সকল ইউপি দল নেতা দল নেত্রী সদস্যদের কাছ থেকে মাথাপিছু ৮-১২ শত পর্যন্ত লখ লখ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।
সোমবার সকল আনসার সদস্যদের  ভাতা বিতরণের নির্ধারিত দিনে আনসার ও ভিডিপি সদস্যদের মাঝে চার দিনের ভাতা প্রদান করা হয় ২ হাজার ১৯০ ও পিসি আর এপিসি পাচ্ছে ২ হাজার ৪ শত ৫০ টাকা ভাতা প্রদান করা হয়েছে। আনসার ও ভিডিপি সদস্যরা কম ভাতা পেয়ে বিক্ষোভ শুরু করেন। তারা দাবি করেন, প্রচণ্ড শীত ও মহামারী করুণার  মাঝে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সম্মানজনক ভাতার আশায় চারদিন ধরে নির্বাচনে দায়িত্ব পালন করেছি। তাহলে তারা চার দিন দায়িত্ব পালন করে কেউ  পাচ্ছেন মাত্র ১ হাজার ১৯০ ও কেউ পাচ্ছেন মাত্র ৯ শত টাকা। এ নিয়ে তারা বিক্ষোভ শুরু করলে তাদের কাছ থেকে টাকা গ্রহণের লিখিত অভিযোগ চান উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোহেল রানা। তাৎক্ষণিক ভুক্তভোগীরা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোহেল রানার নিকট মৌখিকভাবে অভিযোগ দিলে তিনি জড়িতদের বিরুদ্ধে শাস্তির আশ্বাস দেন। উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের আনসার সদস্যরা মো: রুবেল, আবদুল মালেক, বোরহান মিয়া, মতিন মিয়া, রবিউল, হাসিনা বেগমসহ আরও অনেকেই  অভিযোগ করে। সদর ইউনিয়নের দল নেতা খলিল উদ্দিন অভিযোগের বিষয়ে অস্বীকার করে।  জিইরুন গ্রামের ঝর্ণা বেগম অভিযোগের বিষয়ে তিনি স্বীকার করে বলেন, আমরা সকলে কাছ থেকে এক হাজার টাকা করে নিয়েছি। নেওয়ার কারণ হলো আনসার ও ভিডিপি অফিস থেকে আমাদেরকে কোন বেতন ভাতা দেওয়া হয় না। উপজেলার বিভিন্ন সময় সদস্যদের কাজে আসা যাওয়া করার সময় অফিস থেকে কোন খরচ পাওয়া যায় নি। এলাকা গিয়ে সদস্যদের সাথে কথা বলে বিষয়টি মিমাংশা করবো। উপজেলা আনসার ও ভিডিপির কর্মকর্তা নাজিউল রহমান তিনি অভিযোগের বিষয় অস্বীকার করে বলেন, আমি সদস্যদের কাছ থেকে কোন টাকা নেই নি। তবে এ বিষয়ে কোন প্রমাণ ও নাই। অন্য কেউ নিতে পারে আমার জানা নাই। উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোহেল রানা বলেন, আনসার সদস্যদেরকে বলেছি আজ সোমবার ভাতা নিয়ে যাওয়ার জন্য। আনসার সদস্যদেরকে বলছি লিখিত অভিযোগ দেওয়ার জন্য। আমি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা সাথে কথা বলেছি। অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মুহাম্মদ আবু জাহের বলেন, আমি বিষয়টি শুনেছি আসলে যদি এমন হয় তাহলে বিষয়টি অত্যন্ত দুঃখজনক। আমি তাদের বিশৃঙ্খলা দেখে আমি নিজে এবং ইউএনওকে নিয়ে  পরিস্থিতি স্বাভাবিক করেছি। তবে যদি অভিযোগ আমরা সততা পাই অবশ্যই এটার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এখানে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। জেলা আনসার ও ভিডিপির প্রতিনিধি ও হোমনা উপজেলা আনসার ও ভিডিপি কর্মকর্তা মো: শরিফ খান, অভিযোগের বিষয়ে আমি কিছুই জানি না। আমাকে জেলার প্রতিনিধি হিসাবে তাদের মাঝে ভাতার টাকা স্বচ্ছভাবে বিতরণ করার জন্য পাঠানো হয়েছে।
ক্যাপশন: ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার আনসার ও ভিডিপির সদস্যরা তাদের ভাতা নিয়ে বিক্ষোভ করলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোহেল রানা ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মুহাম্মদ আবু জাহের পরিস্থিতি শান্ত করেন।

সংবাদ প্রকাশঃ  ০-০-২০২২ইং সিটিভি নিউজ এর  (সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে দয়া করে ফেসবুকে লাইক বা শেয়ার করুন) (If you think the news is important, please share it on Facebook or the like  See More =আরো বিস্তারিত জানতে ছবিতে ক্লিক করুন=  

Print Friendly, PDF & Email