দলের দুঃসময়ে যারা ছিল তারাই নেতৃত্ব পাবে: তথ্যমন্ত্রী

সিটিভি নিউজের ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন
সিটিভি নিউজ।।    আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী হাসান মাহমুদ বলেছেন, নৌকায় বেশি যাত্রী বিপদের কারণ। যারা এই সাড়ে ১৩ বছর ধরে দল করছে তারা দলের দুঃসময় দেখে নাই। যারা দুঃসময়ে নেত্রীর পাশে ছিল, দলের পাশে ছিল, তাদেরকেই নেতৃত্বে বসাতে হবে।

রোববার (১৯ সেপ্টেম্বর) দুপুরে গাইবান্ধার সার্কিট হাউসে এ আহ্বান জানিয়ে মানুষের সঙ্গে ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ না করতে ছাত্রলীগ-যুবলীগের প্রতি হুঁশিয়ারি দেন হাছান মাহমুদ।

এছাড়া উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষায় আসন্ন জাতীয় নির্বাচনে বিএনপির অতিথি পাখিদের লাল কার্ড দেখানোর আহবান জানান মন্ত্রী।

সন্ত্রাসী, মাদক ব্যবসায়ী, ভূমিদস্যু, দুর্নীতিবাজদের আওয়ামী লীগের দরকার নেই বলে মন্তব্য করেন তিনি। একইসঙ্গে পিঠ বাঁচানোর জন্য যারা দলে ভিড়তে চায় তাদের সম্পর্কে সতর্কবার্তা দিয়ে আওয়ামী লীগের প্রাণ তৃণমূলের কর্মীদের মূল্যায়নের আহবান জানান তিনি।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, দল যেহেতু পৌনে ১৩ বছর ধরে ক্ষমতায় এখন আওয়ামী লীগের নৌকায় উঠতে চায় অনেকেই, নেতাকর্মীদের অনুরোধ জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, সবাইকে আওয়ামী লীগের নৌকায় দরকার নেই। যারা অতীতে ভিন্ন দল করেছে, পিঠ বাঁচানোর জন্য যারা দলে আসতে চায় তাদের দরকার নেই। যারা সন্ত্রাসী, মাদকের সঙ্গে জড়িত, যারা ভূমিদস্যু, চাঁদাবাজ দলে তাদের ঠাঁই নেই। দুর্নীতিবাজ এবং দল ভাঙিয়ে যারা চাঁদাবাজি করতে চায় তাদেরও আওয়ামী লীগের দরকার নেই।

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, যাচাই বাছাই করে আওয়ামী লীগের নৌকায় তুলতে হবে, কারণ নৌকায় বেশি যাত্রী ভালো না। নৌকায় বেশি যাত্রী বিপদের কারণ। যারা এই সাড়ে ১৩ বছর ধরে দল করছে তারা দলের দুঃসময় দেখে নাই। যারা দুঃসময়ে নেত্রীর পাশে ছিল, দলের পাশে ছিল, তাদেরকেই নেতৃত্বে বসাতে হবে।

আসন্ন জাতীয় নির্বাচন নিয়ে মন্ত্রী বলেন, মাত্র দু’বছরের বেশি সময় বাকি আছে নির্বাচনের। নির্বাচনের সময় বিএনপিসহ অনেকে অতিথি পাখির মতো ভোট চাইতে আসবে। তাদের লাল কার্ড দেখিয়ে দিতে হবে। কিছুদিন আগেও মানুষ ছেঁড়া কাপড় পরতো, পায়ে জুতা স্যান্ডেল ছিল না। এখন আর কেউ খালি পায়ে, খালি গায়ে থাকে না, আর কুড়ে ঘর খুঁজে পাওয়া যায় না। এসব শেখ হাসিনার যাদুকরী নেতৃত্বের অবদান। উন্নয়নের সরকার শেখ হাসিনাকে ভোট দিয়ে উন্নয়নের ধারাবাহিকতা ধরে রাখার আহবান জানান তিনি।

সংবাদ প্রকাশঃ  ১-৯-২০২১ইং । (সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে দয়া করে ফেসবুকে লাইক বা শেয়ার করুন) (If you think the news is important, please share it on Facebook or the like  See More =আরো বিস্তারিত জানতে ছবিতে/লিংকে ক্লিক করুন=  

Print Friendly, PDF & Email