ঝালকাঠির ৩ ইউনিয়নে সুপেয় পানির তীব্র সংকটে ৬০ হাজার মানুষ

সিটিভি নিউজের ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন

সিটিভি নিউজ।।    মো:নজরুল ইসলাম,ঝালকাঠি:: শুষ্ক মৌসুমে ঝালকাঠির  কাঁঠালিয়ার তিন ইউনিয়নের বাসিন্দারা সুপেয় পানির তীব্র সঙ্কটে   পড়েন।উপকূলীয় এলাকা ঝালকাঠি। নলকূপে ওঠে লবনাক্ত পানি। দীর্ঘদিন ধরেপানির এ সমস্যায় জেলার কাঁঠালিয়া উপজেলার পাটিখালঘাটা,চেঁচরিরামপুর ও আমুয়া ইউনিয়নের ৬০ হাজার মানুষ। বছরের অন্য সময়পুকুর ও ডোবার পানিতে বিশুদ্ধকরণ ওষুধ দিয়ে পান করেন বাসিন্দারা।আর যাদেরসামর্থ্য নেই, তারা লবণাক্ত পানি দিয়েই সারেন গৃহস্থালীকাজ। কেউ কেউ শুষ্ক মৌসুমের জন্য পানি সংরক্ষণও করে থাকেন। কিন্তু,শুষ্ক মৌসুম এলেই পানির বিকল্প উৎসগুলো শুকিয়ে যাওয়ায় বিপাকেপড়েন বাসিন্দারা।
স্থানীয়রা জানায়, তিনটি ইউনিয়নে ৯৬টি অগভীর নলকূপের মধ্যেঅকেজ ৮টি। পুকুর পারে ১৭২টি পানির ফিল্টারস্থাপন করা হলেও এগুলোরপ্রায় সবই অকেজো থাকে। পরে লবণাক্ততা দূরীকরণ প্লান্ট স্থাপন করে৪টি, সেগুলো নষ্টের পথে।স্থানীয়রা জানান, সুপেয় পানির অভাবে ওই এলাকায় দেখা দিচ্ছেপানিবাহিত বিভিন্ন রোগ-ব্যাধি। পানির সমস্যা সমাধানের দাবিজানিয়েছেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা।তবে বিকল্প পদ্ধতিতে সুপেয় পানির ব্যবস্থা করার চেষ্টা চলছে এবংপর্যায়ক্রমে শহর থেকে গ্রামেও পাইপ লাইনে পানি পৌঁছানোর কথাজানালেন কাঁঠালিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুফল চন্দ্রগোলদার।এদিকে, লবণাক্ত পানি পান করলে নানা সমস্যার কথা জানান জেলা সিভিল  সার্জন রতন কুমার ঢালী।সুপেয় পানির স্থায়ী সমস্যা সমাধানে দীর্ঘ মেয়াদী পরিকল্পনা গ্রহণ   এবং বাস্তবায়নের দাবি জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

সংবাদ প্রকাশঃ  ০৭-১২-২০২১ইং । (সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে দয়া করে ফেসবুকে লাইক বা শেয়ার করুন) (If you think the news is important, please share it on Facebook or the like  See More =আরো বিস্তারিত জানতে ছবিতে/লিংকে ক্লিক করুন=  

Print Friendly, PDF & Email