চৌদ্দগ্রামে স্কুল শিক্ষকের বিরুদ্ধে কুচক্রী মহলের ষড়যন্ত্র

সিটিভি নিউজের ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন
সিটিভি নিউজ।।     – আক্তারুজ্জামান মজুমদার সংবাদদাতা জানান ====
কুমিল্লা চৌদ্দগ্রাম উপজেলার বতিসা ইউনিয়নের নানকরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ অমির হোসেন কুচক্রী মহল দ্বারা ষড়যন্ত্রের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গিয়েছে।গত ১৮ জানুয়ারী স্থানীয় একটি পত্রিকায় পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্র বলাৎকার করেছে বলে সংবাদ প্রকাশিত হয়। কে বা কাহারা সংবাদদাতা কে ভুল তথ্য দিয়ে প্রভান্বিত করে সংবাদটি পরিবেশন করায়, একই পত্রিকায় পরের দিন অর্থাৎ ১৯ জানুয়ারি প্রতিবাদ ছাপিয়ে দায়মুক্ত হয়। নানকরা গ্রামের একটি কুচক্রী মহল দীর্ঘদিন ধরে নানকরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আমির হোসেনের বিরুদ্ধে উঠে পড়ে লেগেছে , জুলাই ২০২১ সালে শিক্ষক আমির হোসেন কে শারীরিক ভাবে নাজেহাল করে এই ব্যপারে চৌদ্দগ্রাম থানায় অভিযোগ করলে স্থানীয় ভাবে ক্ষমা প্রার্থনা করে বিষয়টি মিমাংসা করা হয় বলে বিদ্যালয় সভাপতি আরিফুর রহমান টিপু জানান। তিনি আরো বলেন সম্প্রতি ফেসবুকের বিভিন্ন নামে-বেনামে কিছু স্ট্যাটাস দেখে আমি কথিত ভিকটিমের পরিবারের সাথে যোগাযোগ করি পরিবারের একাধিক সদস্য আমাকে জানান মিথ্যে ভুয়া বানোয়াট কথা এ জাতীয় কোন ঘটনা ঘটেনি, উল্লেখ্য নানকরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় বাতিশা ইউনিয়নের মধ্যে প্রথম স্থানে রয়েছে , যার অগ্রণী ভূমিকা মাস্টার আমির হোসেনের।
নামকরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হাসনাহেনা চৌধুরীর নিকট জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন
এ ব্যাপারে আমার নিকট কেহ কোন প্রকার অভিযোগ করেনি আমার জানামতে আমির হোসেন একজন ভালো শিক্ষক আমাদের বিদ্যালয়টি ইন্টারন্যাশনাল অ্যাওয়ার্ড এর গৌরব অর্জন করেন, তার কো-অডিনেটর হিসেবে কাজ করে সহকারী শিক্ষক আমির হোসেন আমার জানা মতে সে একজন ভালো শিক্ষক এবং ভালো মানুষে । সহকর্মী সকল শিক্ষক একই মত প্রকাশ করেন, এরমধ্যে জান্নাতুল ফেরদৌস তানিয়া বললেন স্যারের বাড়ি আমাদের পাশের গ্রামে
 ছোটবেলা থেকে স্যার কে দেখে আসছি তিনি আমার শিক্ষক ছিলেন এখন তাঁহার সাথে শিক্ষকতা করি নিঃসন্দেহে তিনি একজন ভালো মানুষ।
উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার ফারুক হোসেন বলেন পত্রিকায় নিউজ দেখার পর আমি সহ তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয় । আমরা তদন্ত করে দেখেছি এই ধরণের কোনো কিছু ঘটে নাই যথাযথ কর্তৃপক্ষের নিকট তদন্ত রিপোর্ট জমা দেই।
বাতিসা ইউনিয়নের নামকরা গ্রামের একটি কুচক্রী মহলের কিছু নামে বেনামে ফেসবুক আইডি থেকে আমির হোসেনের নামে কুৎসা রটনা দিয়ে স্ট্যাটাস দিতে থাকে। এতে করে একজন শিক্ষকের সুনাম যেমন ক্ষুন্ন হচ্ছে সেইসাথে বিদ্যালয়ের লেখাপড়ার বিঘ্ন ঘটছে।
নানকরা ও বাতিসা ইউনিয়নের একাধিক ব্যক্তি বলেন একজন ভালো মানের শিক্ষকের সম্ভ্রান্ত হানি করে শিক্ষার পরিবেশ নষ্ট কারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি কামনা করেন ।সংবাদ প্রকাশঃ ২৩০১২০২৩ ইং সিটিভি নিউজ এর  (সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে দয়া করে ফেসবুকে লাইক বা শেয়ার করুন) (If you think the news is important, please share it on Facebook or the like  See More =আরো বিস্তারিত জানতে ছবিতে ক্লিক করুন

Print Friendly, PDF & Email