চৌদ্দগ্রামে অগ্নিকান্ডে বসতঘর পুড়ে ছাই, রাস্তায় রাত কাটিয়েছে ২টি পরিবার

সিটিভি নিউজের ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন

সিটিভি নিউজ।।  মো. বেলাল হোসাইন সংবাদদাতা জানান == ঃ কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে মুন্সীরহাট ইউনিয়নের লনিশ^রের ফজলুল হকের বাড়িতে বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে সৃষ্ট অগ্নিকান্ডে ২টি পরিবারের বসতঘর, পাকঘর, গরুরঘর, প্রয়োজনীয় সকল আসবাবপত্র পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। অগ্নিকান্ডে অন্তত ১২-১৫লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার এবং স্থানীয় ইউপি মেম্বার। এদিকে সর্বস্ব হারিয়ে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারগুলো বর্তমানে রাস্তায় বসবাস করছে। ইউপি সদস্য এবং স্থানীয়রা জানিয়েছে, সময়মতো ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস্থলে পৌছলে ক্ষয়ক্ষতি আরও কম হতো।
জানা যায়, গত মঙ্গলবার দিবাগত রাত আনুমানিক ১০টায় বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে ফজলুল হকের বসতঘরে অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত ঘটে। মূহুর্ত্বের মধ্যেই আগুনের লেলিহান শিখা ফজলুল হকের পাশ^বর্তী মৃত মনির হোসেন মঞ্জুর বসতঘর, পাকঘর, গোয়াল ঘরসহ আশেপাশের সবগুলো ঘরে ছড়িয়ে পড়ে। বাড়ির ফজলুল হক, মৃত মঞ্জুর পরিবারের মহিলা সদস্যরা কোনরকম নিজেদের জান নিয়ে ঘর থেকে বের হয়। প্রবাসী ছেলেদের কষ্টার্জিত অর্থে বসতঘরগুলোতে সাজানো ফ্রীজ, এলইটি টিভি, ষ্টীলের একাধিক আলমিরা, ওয়াল কো-ফিসসহ নানান প্রকারের আসবাবপত্র পুড়ে চোখের সামনেই ছাইয়ে পরিণত হয়। আগুনের ভয়াবহতার কারণে এক টুকরো সুতোও বের করতে পারেনি তারা। স্থানীয়রা জানিয়েছে অগ্নিকান্ডে অন্তত ১২-১৫লক্ষাধিক টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।
ফজলুল হকের স্ত্রী শামছুন নাহার (৬৬) কান্নাজড়িত কন্ঠে জানান, গতকাল সারারাত রাস্তায় রাত কাটিয়েছে পুরো পরিবার। একদিন আগেও তাদের বসতঘরে সবকিছু ছিল, অগ্নিকান্ডে আজ একদিনের ব্যবধানে আমরা পথের ফকিরে পরিণত হয়েছি। এসময় তিনি বলেন, পরিবারের ২জন ছেলেকে ঋন করে বিদেশ পাঠিয়েছি। কিভাবে ঋনের টাকা পরিশোধ করবো, কিভাবে আবারো নতুন করে মাথা গোজার ঠাই ঘর নির্মাণ করবো কিছুই বুঝে উঠতে পারছিনা। এসময় তিনি অভিযোগ করে বলেন, ফায়ার সার্ভিস সময়মতো ঘটনাস্থলে পৌছলে হয়তো আমাদের এত ক্ষয়ক্ষতি হতোনা।
স্থানীয় ইউপি সদস্য আলমগীর হোসেন জানান, মর্মান্তিক অগ্নিকান্ডের ঘটনায় গ্রামবাসী, প্রতিবেশী সাধ্যমতো আগুন নিভানোর চেষ্টা করে। কিন্তু বৈদ্যুতিক আগুনের ভয়াবহতায় নিভানো সম্ভব হয়নি। সময়মতো ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস্থলে পৌছলে ক্ষয়ক্ষতি আরও কম হতো বলে তিনিও ফায়ার সার্ভিসের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন।
চৌদ্দগ্রাম ফায়ার ষ্টেশনের লিডার মো. দিদার জানান, স্থানীয় এবং ক্ষতিগ্রস্থদের অভিযোগ সত্য নয়। অগ্নিকান্ডের ঘটনায় গত মঙ্গলবার রাত ১০টায় আমাদের মোবাইলে কল আসে। ২০ মিনিটের মধ্যে ঘটনাস্থলে পৌছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হই।

সংবাদ প্রকাশঃ  ২-০-২০২২ইং সিটিভি নিউজ এর  (সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে দয়া করে ফেসবুকে লাইক বা শেয়ার করুন) (If you think the news is important, please share it on Facebook or the like  See More =আরো বিস্তারিত জানতে ছবিতে ক্লিক করুন=  

Print Friendly, PDF & Email