কোরবানীর ঈদ আনন্দ ছিলনা শোকার্ত ৫২পরিবারের====

সিটিভি নিউজের ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন

আসামীর সাথে সাবেক জেলা ছাত্রলীগ সভাপতির ফোন আলাপ নিয়ে তোলপার
(ওইযে কইছেন যে কালকে কুরবানি হবে, এই কুরবানির সিষ্টেম হবে মাদ্রাসার ভিতরে)
দেবীদ্বারে মাদ্রাসা নিয়ে দ্বন্দ্বে দু’পক্ষের সংঘর্ষে নিহত-১, আহত-৪

** মামলা ভিন্নখাতে নিতে প্রতিপক্ষের ষড়যন্ত্র
** কোরবানীর ঈদ আনন্দ ছিলনা শোকার্ত ৫২পরিবারের;
কোরবানীর জন্য কেনা ১২ গরু ও ৪টি ছাগল জবাই করেনি ৫২ পরিবারের কেউ।
**মামলার আসামী নাম বাদ দিথে জোরপূর্বক নিয়ে যায় থানায়।

সিটিভি নিউজ।।     এবিএম আতিকুর রহমান বাশার ঃ সংবাদদাতা জানান =====কুমিল্লার দেবীদ্বারে মাদ্রাসার সভাকে কেন্দ্র করে দুপক্ষের সংঘর্ষে মেহেদী হাসান শান্ত (১৬) নামের এক যুবক নিহত ও ছুরিকাঘাতে ৪ জন মারাত্মক আহত হয়েছে। ঘটনাটি ঘটে ঈদের আগে দিন (শনিবার) বিকেল সোয়া ৫ টায় উপজেলার ফতেহাবাদ ইউনিয়নের নূরপুর গ্রামে। মেহেদী হাসান শান্ত একই গ্রামের জাকির হোসেন সরকারের পুত্র। ওই ঘটনায় পুলিশ অভিযান চালিয়ে সাদ্দাম ও মোখলেছ নামের দুই অভিযুক্ত আসামীকে গ্রেফতার করেছে।

এদিকে গ্রেফতারকৃত আসামী সাদ্দাম ও কুমিল্লা উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আবু কাউছার অনিকের মোবাইল ফোন রেকর্ড নেট দুনিয়ায় ভাইরাল হওয়ায়, এ নিয়ে এলাকায় সমালোচনার ঝড় উঠেছে। সাদ্দাম ও অনিক’র ফোন আলাপের মুল কথা ছিলো- আপনি মিটিংটাতে বইসা শুধু ডিক্লার দিবেন, আপনি মুখ দিয়া যেইডা বলবেন, এটা বহাল থাকবে। আর কেউ কথা বললে পিডা হবে। ওইযে কইছেন যে কালকে কুরবানি হবে, এই কুরবানির সিষ্টেম হবে মাদ্রাসার ভিতরে। ফোন আলাপটি ঘটনার দিন কোন এক সময়ের বলে দাবী শান্তর পরিবারের।

স্থানীয় ও মামলা সূত্রে জানা যায়, ঈদের আগের দিন (শনিবার) বিকালে উপজেলার ‘নূরপুর শাহ ফাতেমি ইবতেদায়ী হাফেজিয়া নূরানী মাদ্রাসা ও এতিমখানায় একটি সভা ছিল। সভার পূর্বে নূরপুর গ্রামের আমেরিকা প্রবাসী মোঃ জসীম উদ্দিনের ছেলে সাজিদের সাথে স্থানীয় সাদ্দাম, আল আমিন, সগির ও বায়েজিদের তর্ক হয়। পরে এ নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পরে তারা। ওই সময় সংঘর্ষে শান্তসহ ৫জন আহত হয়। ছরিকাঘাতে গুরত্বর আহত শান্তসহ অপর ৪জনকে দ্রুত দেবীদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসার পর সন্ধ্যা ৬টায় কর্তব্যরত চিকিৎসক শান্তকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ বিষয়ে রাতেই শান্ত’র বাবা জাকির হোসেন সরকার বাদী হয়ে আল আমিন ও সাদ্দামসহ ২৬ জনকে আসামী করে দেবীদ্বার থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। ওই রাতেই পুলিশ অভিযান চালিয়ে মামলার অভিযুক্ত আসামী সাদ্দাম ও মোকলেছকে গ্রেফতার পূর্বক জেল হাজতে প্রেরণ করেন।

অপর দিকে ঈদের দিন (রোববার) বিকালে শান্ত’র নামাজে জানাযা হাজার হাজার মানুষের উপস্থিতিতে হয়ে উঠে প্রতিবাদ মুখর। হত্যাকান্ডের সুষ্ঠ বিচার চান উপস্থিত মুসল্লিরা। ওই সময় হত্যাকান্ডের ইন্দনদাতা দাবী করে কুমিল্লা উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আবু কাউছার অনিক’কে জানাযাকালে আলোচনায় অংশ নিতে দেননি মুসল্লীরা।

এদিকে শান্ত হত্যাকান্ডকে ভিন্নখাতে নেয়ার চেষ্টায় নানা ষড়যন্ত্রে লিপ্ত প্রতিপক্ষ, হত্যাকান্ডের মূল আসামীর নাম পরিবর্তণ করে আমেরিকা প্রবাসী নিহতের মামা সাজিদকে প্রধান আসামী করতে বাদী ও পুলিশের উপর চাপ প্রয়োগ এমনকি ২ নং আসামী সাদ্দামকে ক্যান্সারের রোগী বানিয়ে ২০২১ সালের ৭ মার্চের চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় একটি ছবি দিয়ে মানুষের করোনা পাওয়ার চেষ্টা করছে বলেও মামলার বাদী অভিযোগ করেছেন।

মামলার বাদী শান্ত’র বাবা জাকির হোসেন সরকারের বাড়ির ৫২ পরিবারের পক্ষ থেকে কোরবানীর জন্য ১২টি গরু ও ৪টি ছাগল কোরবানী করেননি। শোকার্ত লোকজন কোরবানী বন্ধ করে হত্যাকান্ডের প্রতিবাদ জানান।

মামলার বাদী শান্ত’র বাবা জাকির হোসেন সরকার জানান, আমার ছেলের হত্যকারীদের আশ্রয় প্রশ্রয় দেয় আবু কাউছার অনিক। গত শুক্রবার মসজিদে প্রকাশ্যে অনিক বলেন গরু কোরবারির সাথে মানুষও কোরবানি করবে। তার একদিন পর আমার ছেলেকে অনিকের অনুসারিরা হত্যা করে। তারা আমার ছেলেকে হত্যা করেই শান্ত হয়নি, মামলা তুলে নিতে হুমকী ধমকী দিচ্ছে। ঈদের দিন সকালে মামলা তুলে নিতে আমাকে জোড়পূর্বক দেবীদ্বারে ধরে নিয়ে যায় অনিক।

অভিযোগের বিষয়ে কুমিল্লা উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আবু কাউছার অনিক জানান, আমার বিরুদ্ধে আনীত সকল অভিযোগ মিথ্যা ও বিত্তিহীন। মামলা তুলতে নয়! মামলা থেকে একজন আসামীর নাম বাদ দিতে গ্রামে ৭-৮ জনের সিদ্ধান্তের কারনে বাদীকে নিয়ে থানায় যাই। কিন্তু তিনি থানায় গিয়ে উল্টে যায়। সুষ্ঠভাবে তদন্তের মাধ্যমে শান্ত হত্যার বিচার হউক আমিও চাই। ফোন আলাপ ভাইরালের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, সাজিদ এসে সাদ্দামকে বলে মিটিংয়ে আসার জন্য আমাকে ফোন দিতে। তখন সাদ্দাম আমার সাথে ফোন দিয়ে কথা বলে। আমরা ফোনে কথা বলা অবস্থায় পাশ^ থেকে সাজিদ তা ভিডিও করে।

এ ব্যাপারে দেবীদ্বার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কমল কৃষ্ণ ধর জানান, নিহত শান্ত’র বাবা বাদী হয়ে ৬ জনের নামীয় এবং আরো অজ্ঞাতনামা ১৫/২০ জনকে আসমী করে মামলা দায়ের করে। পুলিশ অভিযান চালিয়ে এজহার ভুক্ত আসামী সাদ্দাম ও মোকলেছ’কে গ্রেফতার পূর্বক রোববার কোর্টে প্রেরন করা হয়েছে। মামলার রহস্য উদঘাটনে পুলশের একাধীক টিক কাজ করছে।

সংবাদ প্রকাশঃ  ১৪-০-২০২২ইং সিটিভি নিউজ এর  (সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে দয়া করে ফেসবুকে লাইক বা শেয়ার করুন) (If you think the news is important, please share it on Facebook or the like  See More =আরো বিস্তারিত জানতে ছবিতে ক্লিক করুন=  

Print Friendly, PDF & Email