বেশী দিন বাচঁতে বিয়ে করুন তাড়াতাড়ি

সিটিভি নিউজের ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন

সিটিভি নিউজ।।       বিয়ে করলে নাকি দীর্ঘ জীবন বেঁচে থাকা যায়। মৃত্যু ঝুঁকিও অনেকাংশে কমে যায়। অবশ্যই বিবাহিত জীবনে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে সুসম্পর্ক থাকতে হবে। সম্প্রতি মার্কিন গবেষকরা নতুন এক গবেষণার পর এমন তথ্যই জানালেন। নতুন এই গবেষণাটি সেরেছেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নর্থ ক্যারোলাইনার ডিউক ইউনিভার্সিটি মেডিকেল সেন্টারের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ও গবেষক ইলিন সিয়েগলার ও তার সহযোগী গবেষকরা।

ভারতের এক বিজ্ঞানী গবেষণায় দেখতে পেয়েছেন, বিয়ে করার ফলে রক্তচাপের সমস্যা, কোলেস্টেরল এবং ডায়াবেটিকের সমস্যা দূর হয়।

যুক্তরাজ্যের অ্যাস্টন বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক রাহুল পতলুরি জানান, হার্ট অ্যাটাকের রোগীদের মাঝে যারা বিবাহিত তাদের বেঁচে যাবার আশা বেশি। এই গবেষণার মাধ্যমে অনেক গড়মিল হিসাবও মিলিয়ে নেয়া সম্ভব হয়েছে।

১০ লক্ষ তরুণের মাঝে প্রধান ৩ শারীরিক সমস্যা নিয়ে গবেষণা করা হয়। তারা মূলত উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা, অতিরিক্ত কোলেস্টেরল এবং টাইপ-২ ডায়াবেটিকের সমস্যা নিয়ে গবেষণা করেন। তারা ৫ বছর পর সেই ব্যক্তিদের আবার চেকআপ করেন।

গবেষক দল পড়ে দেখতে পায় উচ্চ কোলেস্টেরলের মাত্রা থাকার পরও যারা বিবাহিত তারা ১৬ শতাংশ বেশি বাঁচে। উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা এবং টাইপ-২ ডায়াবেটিকের সমস্যার ক্ষেত্রেও এরকম ফলাফল পাওয়া যায়। অবিবাহিতদের তুলনায় বিবাহিত ব্যক্তিদের যথাক্রমে ১৪ ও ১০ শতাংশ বেশি বাঁচার সম্ভাবনা রয়েছে।

গবেষক দলের প্রতিনিধি পাউল কারটার জানান, আমাদের গবেষণা বলছে বিবাহের কারণে মানুষের মাঝে প্রতিরক্ষামূলক ভঙ্গি দেখা যায়। তারা বিশ্বাস করেন, সঙ্গীর যত্ন নেয়ার কারণে মানুষের মাঝে বেশিদিন বেঁচে থাকার প্রেরণা বাড়ে। এতে করে বিবাহিত ও অবিবাহিত ব্যক্তিদের শারীরিক রোগের পার্থক্য সৃষ্টি হয়।

যার একজন সঙ্গী হিসেবে নিজের স্ত্রী রয়েছে, তাদের ঔষধ গ্রহণ, ভাল খাবার খাওয়া এবং যথেষ্ট ব্যায়াম করা খুব সহজে সম্ভব হয়। তাদের অসুস্থতায় এবং স্বাস্থ্যের জন্য তাদের যত্ন নেয়ার জন্য পাশে সবসময় একজন থাকে। এতে করে অবিবাহিতদের তুলনায় তাদের মৃত্যুর ঝুঁকি হ্রাস পায়।

সংবাদ প্রকাশঃ  ২৪-০-২০২২ইং সিটিভি নিউজ এর  (সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে দয়া করে ফেসবুকে লাইক বা শেয়ার করুন) (If you think the news is important, please share it on Facebook or the like  See More =আরো বিস্তারিত জানতে ছবিতে/লিংকে ক্লিক করুন=  

Print Friendly, PDF & Email