ফজরের নামাজের সময় ছাত্রীকে কক্ষে ডাকেন মাদরাসা সুপার, তারপর সর্বনাশ করেন

সিটিভি নিউজের ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন

সিটিভি নিউজ।।       কুষ্টিয়ার মিরপুরে এক মাদরাসা ছা’ত্রীকে (১৩) দু’দফা ধর্ষণের ঘটনা জানাজানি হলে ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী মাদরাসা ঘেরাও করে ভাঙচুর করেছে। এ ঘটনার পরে সোমবার রাতে মা’ওলানা আবদুল কাদের নামে ওই মাদরাসা সুপারকে গ্রে’প্তার করেছে পু’লিশ।  গত রবিবার ভোরে ও রাতে উপজে’লার পো’ড়াদহ ইউনিয়নের স্বরূপদহ চকপাড়া এলাকার সিরাজুল উলুম ম’রিয়ম নেসা মাদরাসায় এই ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। পু’লিশ ওই শিক্ষার্থীকে হাসপাতা’লে পাঠিয়েছে।পুলিশ সূত্র জানায়, মেয়েটি ওই মাদরাসার আবাসিক ছাত্রী। সপ্তাহের ৬ দিন সে ওই মাদরাসায় থাকত। প্রতি শুক্রবার সকালে তার বাবা তাকে বাড়ি নিয়ে যেতেন, আবার শনিবার সকালে পৌঁছে দিতেন মাদরাসায়। গত শনিবার সকালে মেয়েটির বাবা তাকে মাদরাসায় পৌঁছে দেন। রবিবার ভোরে ফজরের নামাজের সময় মা’ওলানা আবদুল কাদের মেয়েটিকে নিজ কক্ষে ডেকে নিয়ে ধ’র্ষণ করেন। পরে রাত ৮টার দিকে আবারো কক্ষে ডেকে নিয়ে তাকে দ্বিতীয় দফা ধ’র্ষণ করেন। এ সময় সুপার বিষয়টি কাউকে না জানাতে মেয়েটিকে শাসিয়ে দেন। তবে মেয়েটি গতকাল সোমবার সকালে তার এক সহপাঠীকে বিষয়টি জানায়। সহপাঠী ঘটনাটি তার বাবাকে জানালে তা এলাকায় জানাজানি হয়ে যায়। পরে বিক্ষুব্ধ জনতা মাদরাসায় হা’মলা চালায় ও ভাঙচুর করে।মিরপুর থা’নার ওসি আবুল কালাম জানান, মে’য়েটির বাবার অ’ভিযোগের ভিত্তিতে মেয়েটিকে মেডিক্যাল টেস্টের জন্য কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতা’লে পাঠানো হয়েছে। অ’ভিযু’ক্ত মাদরাসা সুপারকে সোমবার রাতে গ্রে’প্তার করা হয়েছে। সংবাদ প্রকাশঃ  ০৬১০২০২০ইং (সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে দয়া করে ফেসবুকে লাইক বা শেয়ার করুন) (If you think the news is important, please share it on Facebook or the like সিটিভি নিউজ@,CTVNEWS24   এখানে ক্লিক করে সিটিভি নিউজের সকল সংবাদ পেতে আমাদের পেইজে লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুনসিটিভি নিউজ।। See More =আরো বিস্তারিত জানতে লিংকে ক্লিক করুন=   

Print Friendly, PDF & Email