জাতীয় সংসদের মেম্বারস ক্লাবে এমপি-চেয়ারম্যান মারামারি: চেয়ারম্যান হাসপাতালে ভর্তি

সিটিভি নিউজের ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন

ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ করে চেয়ারম্যান সমর্থকরাঃ দেবীদ্বারে দুই গ্রুপে সংর্ঘষ আহত অন্তত: ১০

সিটিভি নিউজ।।  এবিএম আতিকুর রহমান বাশার ঃ জানান ======
জাতীয় সংসদের মেম্বারস ক্লাবে দেবীদ্বার উপজেলা আ’লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সভায় ১ ইউনিয়ন কমিটি ঘোষণাকে কেন্দ্র করে এমপি-উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের মাধ্যে মারামারির ঘটনা ঘটেছে বলে খবর পাওয়া গেছে। শনিবার বিকালে ওই সভা চলাকালে এ ঘটনা ঘটে।
দলীয় সূত্রে জানা যায়, ২৬ বছর পর আগামী ২১ জুলাই দেবীদ্বার উপজেলা সম্মেলন হতে যাচ্ছে। ওই সম্মেলনকে কেন্দ্র করে আজ (১৬ জুলাই) জাতীয় সংসদ ভবনের দ্বিতীয় তলায় পার্লাম্যান্ট মেম্বারস ক্লাবে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। ওই বৈঠকে জেলার সভাপতি ম. রুহুল আমিনসহ জেলা এবং উপজেলার প্রায় ২৬ নেতা উপস্থিত ছিলেন। সভার এক পর্যায়ে উপজেলা ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মতিন সরকার দাবী তুলেন, এলাহাবাদ ইউনিয়ন কমিটি ঘোষণা দেয়ার। এসময় সকল সদস্য এক বাক্যে তা সমর্থন করলে কুমিল্লা (উঃ) জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক হাজী রোশন আলী মাষ্টার সাবেক ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ সিরাজুল ইসলাম সরকারকে সভাপতি হিসাবে এবং সাধারন সম্পাদক হিসেবে আক্তারুজ্জামান স্বপনের নাম ঘোষণা করেন। ওই সময় কুমিল্লা-৪ (দেবীদ্বার) এমপি রাজী মোহাম্মদ ফখরুল কমিটি মানিনা বলে ঘোষণা দেয়। পাশে বসা দেবীদ্বার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ কুমিল্লা(উঃ) জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আবুল কালাম আজাদ কমিটি সুন্দর হয়েছে বললে এমপি ও উপজেলা চেয়ারম্যানের মধ্যে মারামারি হয়। এ ঘটনায় চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ ঢাকার একটি হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার সংবাদ পাওয়া গেছে।
রাত সাড়ে ৮টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ওই ঘটনায় সন্ধ্যা থেকে উপজেলা চেয়ারম্যান সমর্থকরা ‘ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ করে রাখেন। অপরদিকে ‘দেবীদ্বার-চান্দিনা সড়ক অবরোধ’ হওয়ার খার পাওয়া যায়। রাত পৌনে ৮টায় চেয়ারম্যান সমর্থকরা দেবীদ্বার সদরে মিছিল বাহির করলে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া শুরু হয়। এতে উভয় পক্ষের মাহবুবুর রহমান, আবদুর রাজ্জাক, সাইফুল ইসলাম বাবু ও মোঃ সুমনসহ অজ্ঞাতনামা অন্তত: ১০জন আহত হওয়ার খাবর পাওয়া যায়। এ সময় মুহুর্মূহু ককটেল বিস্ফোরনের আওয়াজ শোনা যাচ্ছে। পুরো দেবীদ্বারে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।
উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম সফিকুল আলম কামাল বলেন, একজন সংসদ সদস্যের কাছ থেকে এমন ন্যাক্কারজনক আচরণ আশা করি নাই।
কুমিল্লা কুমিল্লা (উঃ) জেলা সহ-সভাপতি হাজী আব্দুল মতিন মূন্সী বলেন, ঘটনাটি অত্যন্ত ন্যাক্কার জনক। ২৬ বছর পর আগামী ২১ জুলাই দেবীদ্বার উপজেলা সম্মেলন হতে যাচ্ছে। ওই সম্মেলনকে কেন্দ্র করে আজ (১৬ জুলাই) জাতীয় সংসদ ভবনের দ্বিতীয় তলায় পার্লাম্যান্ট মেম্বারস ক্লাবে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। ওই বৈঠকে জেলার সভাপতি ম. রুহুল আমিনসহ জেলা এবং উপজেলার প্রায় ২৬ নেতা উপস্থিত ছিলেন। আমাদের আলোচনা শেষ পর্যায়ে আর ২/৩ মিনিটের মধ্যে সমাপ্ত ঘোষণা হবে। এমন সময় উপজেলা ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মতিন সরকার দাবী তুলেন, এলাহাবাদ ইউনিয়ন কমিটি ঘোষণা দেয়ার। এসময় সকল সদস্য এক বাক্যে তা সমর্থন করেন। কুমিল্লা (উঃ) জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক হাজী রোশন আলী মাষ্টার সর্বসম্মতি ক্রমে বলেন, কমিটির কাউন্সিলরদের মতের ভিত্তিতে পূর্নাঙ্গ কমিটি ঘোষণা হবে, তবে সভাপতি সাধারন সম্পাদকের নাম ঘোষণা করে দেই। এসময় সাবেক ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ সিরাজুল ইসলাম সরকারকে সভাপতি হিসাবে ঘোষণা দেয়ার পর সাধারন সম্পাদক হিসেবে আক্তারুজ্জামান স্বপনের নাম ঘোষণা শেষ না করতেই এমপি রাজী মোহাম্মদ ফখরুল সাহেব বসা থেকে লাভ দিয়ে উঠে বলেন, আমি এ কমিটি মানিনা। এসময় পাশে বসা দেবীদ্বার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ কুমিল্লা(উঃ) জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আবুল কালাম আজাদ বলেন বলেন কমিটি সুন্দর হয়েছে। এমনি এমপি সাহেব উপজেলা চেয়ারম্যাকে ঘুষি-কিল মারতে মারতে মেঝেতে ফেলে দেয়। চেয়ারম্যান সাহেব উঠে এমপি সাহেবের উপর চড়াউ হন।
কুমিল্লা (উঃ) জেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা হাজী আবুল কাসেম সওদাগর বলেন, জাতীয় সংসদে বসে সংসদসদস্যরা মানুষের জন্য আইন প্রণয়ন করেন আর আমাদের সংসদ সদস্য জাতীয় সংসদে মারামারি করেন।
আর এক উপদেষ্টা এটিএম মেহেদী হাসান জানান, মিটিং এর একেবারে শেষ পর্যায়ে একটি ইউনিয়ন কমিটি ঘোষণা দেয়ার প্রস্তাব করেন উপজেলা আ’লীগ সভাপতি, সবার সম্মতিতে কমিটির সভাপতি সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণা করার সাথে সাথে এমপি সাহেব এ অপ্রিতিকর ঘটনা ঘটান।
এব্যাপারে দেবীদ্বার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ কুমিল্লা(উঃ) জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আবুল কালাম আজাদের সাথে যোগাযোগ করেও কথা বলা যায়নি তিনি ঢাকার একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। তার মুখে আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে কথা বলতে পারেনা।
এব্যপারে কুমিল্লা-৪ দেবীদ্বার নির্বাচনী এলাকার সংসদ সদস্য রাজী মোহাম্মদ ফখরুল এর সাথে কথা বলার চেষ্টা করেও তিনি ফোন রিসিভ করেনি।
কুমিল্লা (উঃ) জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ম. রুহুল আমিন’র সাথে মোবাইল ফোনে চেষ্টা করেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।
এ ব্যাপারে কুমিল্লা (উঃ) জেলা সাধারন সম্পাদক হাজী রোশন আলী মাষ্টার বলেন, আমরা বিগত বিএনপি-জামাত জোট সরকারের হাতে ২০০৪ সাল থেকে মার খেয়ে আসছি, এখনো মার খাচ্ছি। এমপি সাহেবের এ জঘন্য আচরনের বর্ণনা দেয়া আমার পক্ষে সম্ভব নয়। একজন জাতীয় সংসদ সদস্য একজন উপজেলা চেয়ারম্যানকে এভাবে লাঞ্ছিত করবেন এটা কেউ প্রত্যাশা করেনি। আগামী ২১ জুলাই উপজেরা সম্মেলন সম্পন্ন করায় কতটুকু আশাবাদী জানতে চাইলে তিনি জানান, সম্মেলনকে বাঞ্চাল করতেই আজকের এ ঘটনার জন্ম দেয়া হয়েছে। যা বিগত ২৬ বছরের পথ অনুস্রণীয়।
রাত সাড়ে ৮টায় সর্বশেষ পরিস্থিতি জানতে দেবীদ্বার থানার অফিসার ইনচার্জ কমল কৃষ্ণ ধর এর সাথে কথা বলতে চাইলেও তিনি ব্যস্ততার জন্য কথা বলতে পারেনি। এ রিপোর্ট লিখা পর্যন্ত রাত পৌনে ৯টায় এমপি গ্রুপ উপজেলা সদরে সশস্ত্র মহড়ায় থাকতে দেখা যায়।

সংবাদ প্রকাশঃ  ১৭-০-২০২২ইং সিটিভি নিউজ এর  (সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে দয়া করে ফেসবুকে লাইক বা শেয়ার করুন) (If you think the news is important, please share it on Facebook or the like  See More =আরো বিস্তারিত জানতে ছবিতে ক্লিক করুন=  

Print Friendly, PDF & Email