কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় কুপিয়ে জখম।। কুমিল্লায়  মামলা প্রত্যাহার না করায়  প্রবাসীর মা ও স্ত্রী কে কুপিয়ে জখম,বাড়ি ঘর ভাংচুর লুটপাটের অভিযোগ

সিটিভি নিউজের ইউটিউব চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করুন

সিটিভি নিউজ।।    সৌরভ মাহমুদ হারুন     ব্রাহ্মণপাড়া  (কুমিল্লা)  প্রতিনিধি=============
কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার গোবিন্দপুর গ্রামের মালদ্বীপ প্রবাসীর স্ত্রী কে স্থানীয় বখাটে যুবকের কু-প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে মারাত্মকভাবে ভাবে আহত করে। এঘটনায় গত ২৭ সেপ্টেম্বর বুড়িচং থানায় একটি মামলা দায়ের করে। গত কয়েক দিন ধরে মামলা প্রত্যাহার করার জন্য প্রবাসীর মা ও স্ত্রী কে বিভিন্ন হুমকি ধমকী দিয়ে আসছে। শুক্রবার মাগরিব এর নামাজের সময় ওই বখাটেরা দা ছেনি নিয়ে সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে এবং কুপিয়ে  ২য় দফা মারাত্মক ভাবে আহত করে।
এসময় আহতদের কে চিকিৎসার  জন্য বাড়ি থেকে উদ্ধার করে কাউকে নিয়ে আসতে দেয়নি। খবর পেয়ে বুড়িচং থানার এ এস আই মোঃ আলা উদ্দিন সঙ্গীয় ফোর্স সহ ঘটনা স্থলে গিয়ে উদ্ধার করে বুড়িচং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করে।

স্থানীয় সূত্র, আহৃত লিপি আক্তার  ও  পুলিশ জানায়জেলার বুড়িচং উপজেলার পীরযাত্রাপুর ইউনিয়ন এর গোবিন্দপুর গ্রামের মালদ্বীপ প্রবাসী আবু আজম এর স্ত্রী লিপি আক্তার (২৫)কে একই এলাকার  আমিনুল ইসলাম এর ছেলে মোস্তাকিন ও  আব্দুর রহিম  বিভিন্ন সময় কু প্রস্তাব দিয়ে আসছে। তাদের এ প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় তারা ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। গত ২৭ সেপ্টেম্বর বিকাল সাড়ে ৪ টায়  মোস্তাকিন ও রহিম সংঘবদ্ধ হয়ে হামলা  চালিয়ে মারাত্মকভাবে ভাবে লিপি ও তার শ্বাশুড়ি কে মার ধর  আহত করে। বাড়ির লোকজন তাদের কে বুড়িচং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ ভর্তি করে। গত ২৭ তারিখ বুড়িচং থানায় আমিনুল ইসলাম এর দুই ছেলে মোস্তাকিন ও রহিম সহ ৪-৫ জন কে আসামি করে  একটি মামলা দায়ের করে।
এ মামলা টি প্রত্যাহার করার জন্য আসামি পক্ষের লোকজন বিভিন্ন ভাবে হুমকি ধমকী  ও হত্যার ভয়ভীতি প্রদর্শন করে আসছে।  গত শুক্রবার আমিনুল ইসলাম এর বড় ছেলে মোস্তাকিন এর বড় ভাই  শাওন
(৩০) শুক্রবার ঢাকা থেকে বাড়ি আসে এবং মামলা প্রত্যাহার না করায় ওই দিন শুক্রবার মাগরিব নামাজের সময় শাওনেের নেতৃত্বে  মোস্তাকিন ও রহিম দা ছেনি নিয়ে প্রবাসীর স্ত্রী লিপির ঘরে প্রবেশ করে। এর পর  লিপি আক্তার ও তার শ্বাশুড়ি কে কুপিয়ে জখম করে এবং বাড়ি ঘর ভাংচুর লুটপাট করে। বাড়ির লোকজন তাদের উদ্ধার করে নিতে বাধ্য প্রদান করেন। পরে খবর পেয়ে বুড়িচং থানার এ এস আই মোঃ আলা উদ্দিন সঙ্গীয় ফোর্স এসে উদ্ধার করে বুড়িচং হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করে।এদিকে লিপি আক্তার আরও অভিযোগ করে বলেন যে
তারই প্রতিবেশী প্রতিপক্ষ আমিনুল ইসলামের ছেলেমো. মোস্তাকিন (২৮) ও রহিম
স্বামী প্রবাসে থাকার  তাকে বিভিন্নসময়ে কু-প্রস্তাব দিয়ে আসছে। অযথা তার কাছে  টাকা পয়সা হাওলাত চায় ও রাতে জানালা থাই গ্লাসখোলার কু প্রস্তাব দেয়। এতে লিপি আক্তার ও তার শ্বাশুড়ী উভয়ে ব্যাপক অতিষ্টে দিনাতিপাত করেআসছেন। এতে লিপি আক্তার থানায় অভিযোগ দায়ের  করলে প্রতিপক্ষরা আরো ক্ষুব্ধ হয়ে উঠে। এর রেশ ধরে গত৩০ সেপ্টেম্বর শুক্রবার  বাদ মাগরিব উল্লেখিত অভিযুক্তরাঅতর্কিত হামলা চালিয়ে লিপি আক্তার ও তার শ্বাশুড়ীকেবেধরক মারধোর করে। এক পর্যায়ে লিপি আক্তারেরমাথায় ছেনি দিয়ে কুপ মারে এতে সে আহত হয়েমাটিতে লুটে পড়ে। কোন উপায় না পেয়ে ৯৯৯ এ  থানায় কল দিলে বুড়িচং থানারয় এএসআই মো.আলাউদ্দীন সর্ঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে তাদেরকে উদ্ধার  পূর্বক বুড়িচং উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে চিকিৎসারজন্য ভর্তি করে। বর্তমানে সে স্বাস্থ্য কেন্দ্রেচিকিৎসাধীন রয়েছে।এ এস আই মোঃ আলা উদ্দিন বলেন আমি খবর পেয়ে পুলিশ নিয়ে আহত প্রবাসীর  মা ও স্ত্রী লিপি আক্তার  কেউদ্ধার করে বুড়িচং হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করি।পূর্বে আসামীদের বিরুদ্ধেপ্রবাসীর স্ত্রী কে বিভিন্ন হয়রানি ও হামলা মারধর করার অপরাধে থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

ক্যাপশন;
বুড়িচং  উপজেলার গোবিন্দপুর গ্রামের মালদ্বীপ প্রবাসীর স্ত্রী  কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় এবং মামলা প্রত্যাহার না করায়  ২য় বার  মারধোর ভাংচুর করে।

সংবাদ প্রকাশঃ  ০১-১০-২০২২ইং সিটিভি নিউজ এর  (সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে দয়া করে ফেসবুকে লাইক বা শেয়ার করুন) (If you think the news is important, please share it on Facebook or the like  See More =আরো বিস্তারিত জানতে ছবিতে ক্লিক করুন=  

Print Friendly, PDF & Email