আলজাজিরার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেবে বাংলাদেশ

সিটিভি নিউজ।।      আবারও বাংলাদেশের সুনাম ক্ষুণ্ন করতে নতুন এজেন্ডা নিয়ে মাঠে নেমেছে কাতারভিত্তিক টেলিভিশন চ্যানেল আলজাজিরা। একের পর এক সংবেদনশীল ইস্যু নিয়ে তথ্য-প্রমাণ ছাড়াই উদ্ভট, বিতর্কিত ও মিথ্যা সংবাদ প্রচার করে বহির্বিশ্বে বাংলাদেশকে হেয় করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে। পাশাপাশি মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগ সরকারকে বেকায়দায় ফেলতেই পরিকল্পিতভাবে জামায়াতে ইসলামীর এজেন্ডা বাস্তবায়নের অভিযোগ রয়েছে গণমাধ্যমটির বিরুদ্ধে। আর এর নেপথ্যে রয়েছে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ ও আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল নিয়ে গণমাধ্যমে সমালোচনা করে সাজা খাটা ব্রিটিশ সাংবাদিক ডেভিড বার্গম্যান ও  এক সময়ের শীর্ষ সন্ত্রাসী, যুদ্ধাপরাধী জামায়াতসহ একটি বিশেষ গোষ্ঠী।
সম্প্রতি সরকারের বিরুদ্ধে প্রচারিত একটি প্রতিবেদন ও গণমাধ্যমটির ভূমিকা নিয়ে দেশজুড়ে চলছে সমালোচনা ও ক্ষোভের ঝড়। সরকারসহ দেশের গণমাধ্যমও সমালোচনায় মুখর। এই ঝড় ছড়িয়ে পড়ছে বিশ্বের বিভিন্ন দেশেও। রাজনৈতিকভাবে বাংলাদেশ ও সরকার নিয়ে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন বিশিষ্টজনরা। সরকারও এই অপ্রপচারের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে কড়া জবাব দিচ্ছে। সরকার বলছে, আলজাজিরায় প্রচারিত এই প্রতিবেদন তথ্যবহুল নয়, মিথ্যা ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত। দেশের একটি ধিক্কৃত ও বর্জিত শ্রেণি দেশের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে ষড়যন্ত্র করছে। এই অসত্য তথ্য প্রচার করায় গণমাধ্যমটির বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়েছে সরকার।
গত ১ ফেব্রুয়ারি রাতে কাতারভিত্তিক বিতর্কিত গণমাধ্যম আলজাজিরা বাংলাদেশবিষয়ক কথিত এক অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। ‘অল দ্য প্রাইম মিনিস্টারস ম্যান’ শিরোনামে তথাকথিত এ অনুসন্ধানী প্রতিবেদনটির ব্যাপ্তি এক ঘণ্টারও বেশি। এতে বাংলাদেশ ও আওয়ামী লীগ সরকারের প্রধান শেখ হাসিনাকে নিয়ে বিভ্রান্তিমূলক তথ্য প্রচার করা হয়। আলজাজিরায় প্রকাশিত প্রতিবেদনটি ‘তথ্যভিত্তিক নয়’ মন্তব্য করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, এটি ‘দেশবিরোধী ষড়যন্ত্রের’ বহিঃপ্রকাশ। আলজাজিরার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেন। তবে ভিন্ন কথা বলেছেন বিশিষ্ট আইনজীবী ড. শাহদীন মালিক। ‘আলজাজিরায় অসত্য ও বিভ্রান্তিমূলক সংবাদ প্রচারের ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া যাবে কীনা’- প্রশ্নের জবাবে তিনি স্বদেশ প্রতিদিনকে বলেন, বিভ্রান্তিমূলক তথ্য কিংবা অসত্য তথ্য দিয়ে সংবাদ প্রচারের অভিযোগে আলজাজিরার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার কতটুকু সুযোগ আছে? তিনি বলেন, ‘আপনাদের পত্রিকায় অসত্য নিউজ ছাপা হয় না? কোনো মামলা হয়েছে? আপনার উত্তরটি পেয়েছেন?’
তবে আলজাজিরার মিথ্যা ও উগ্রবাদীদের উস্কানি দেওয়ার কারণে টিভি চ্যানেলটির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়ে সম্প্রচার বন্ধ করে দিয়েছে আরব দেশের অন্তত ১১টি দেশ।
বাংলাদেশের বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে ইতিপূর্বেও আলজাজিরায় প্রকাশিত খবর সম্পর্কে রয়েছে নানা বিতর্ক। বাংলাদেশকে বিশ্বের কাছে নেতিবাচকভাবে তুলে ধরতে দেশের স্বাধীনতা, যুদ্ধাপরাধের বিচার, নিরাপদ সড়ক ও কোটা সংস্কার আন্দোলন, রোহিঙ্গাসহ সামাজিক কিংবা রাজনৈতিক বাংলাদেশের যে কোনো আন্দোলন, ইস্যু ও সংকট নিয়ে খবর প্রচারের ক্ষেত্রেই আলজাজিরার বস্তুনিষ্ঠতা ছিল প্রশ্নবিদ্ধ। সামাজিক কিংবা রাজনৈতিক বাংলাদেশের যে কোনো আন্দোলন, ইস্যু ও সংকট নিয়ে কাতারভিত্তিক গণমাধ্যম আলজাজিরার প্রতিবেদন ছিল প্রশ্নবিদ্ধ। রাজনৈতিক রং লাগিয়ে দেশকে অস্থিতিশীল করা কিংবা সরকারকে প্রশ্নবিদ্ধ করাই তাদের লক্ষ্য বলে মনে করেন অনেকে। কারণ তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, যারা দেশে ঘৃণিত, বর্জিত, ধিক্কৃত- তারা দেশের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে ষড়যন্ত্র করছে। তাদের এ ষড়যন্ত্র সফল হবে না।
৬ বছর আগে যুদ্ধাপরাধ মামলায় জামায়াত নেতা মীর কাশেম আলীর ফাঁসির রায়ের পর মরিয়া হয়ে ওঠে আলজাজিরা। পরদিনই জামায়াতের নিয়োগ করা লবিস্ট টবি ক্যাডম্যান ও ডেভিড বার্গম্যানকে নিয়ে আয়োজন করা হয় এক অনুষ্ঠানের। ‘হোয়াটস বিহাইন্ড বাংলাদেশ ওয়ার ক্রাইমস ট্রায়াল’ নামক ওই অনুষ্ঠানে যুদ্ধাপরাধের বিচার ব্যবস্থা ও মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের সংখ্যা নিয়ে  প্রশ্নবিদ্ধ করে নানা বক্তব্য দেন টবি ও বার্গম্যান। যুদ্ধাপরাধের বিচারে আসামিপক্ষের আইনজীবীরা সমান সুযোগ পেলেও একতরফা বিচার বলে প্রচার করেছে তারা। তখন ইংরেজি দৈনিক নিউএজে কর্মরত ছিলেন ব্রিটিশ নাগরিক ডেভিড বার্গম্যান।
এ ঘটনায় ২০১৪ সালের ২ ডিসেম্বর আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল বার্গম্যানকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা ও আদালতকক্ষে সাজা দেন। ট্রাইব্যুনাল পর্যবেক্ষণে বলেন, বার্গম্যান ‘জাতির অনুভূতিতে আঘাত করেছেন’ এবং ‘জাতির গর্ব মুক্তিযুদ্ধকে নিয়ে তিনি যে ন্যায়ভ্রষ্ট দৃষ্টিভঙ্গি পোষণ করেন, তা তার মানসিকতা পরীক্ষা করলেই বোঝা যায়।’ এরপরের বছর দেশ ছাড়েন বার্গম্যান। শুধু যুদ্ধাপরাধ ইস্যু নয়, নিরাপদ সড়ক আন্দোলন, কোটা সংস্কার আন্দোলন এমনকি রোহিঙ্গা ইস্যুতেও নেতিবাচক খবর প্রচার করেছে আলজাজিরা। নিরাপদ সড়কের আন্দোলনকে পুঁজি করে একের পর সরকারের নানা সমালোচনা করা হয় গণমাধ্যমটিতে। এ ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয় সরকারবিরোধীদের। এ ছাড়া বিভিন্ন সময় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-র‌্যাবকে জড়িয়ে বিরোধীদলীয় রাজনৈতিক নেতাকর্মীদের গুম ও খুনের বিভ্রান্তিকর প্রতিবেদনও প্রচার করে আসছে গণমাধ্যমটি। যার অধিকাংশই করেছেন বিতর্কিত সাংবাদিক ডেভিড বার্গম্যান।
শেখ হাসিনা সরকারের বিরুদ্ধে আলজাজিরার প্রতিবেদন উদ্দেশ্যমূলক ও অপপ্রচারের নোংরা বহিঃপ্রকাশ বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, শেখ হাসিনাকে নিয়ে অসত্য তথ্যপ্রচার অত্যন্ত নিন্দনীয়।সংবাদ প্রকাশঃ  ৪২০২১ইং (সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে দয়া করে ফেসবুকে লাইক বা শেয়ার করুন) (If you think the news is important, please share it on Facebook or the like সিটিভি নিউজ@,CTVNEWS24   এখানে ক্লিক করে সিটিভি নিউজের সকল সংবাদ পেতে আমাদের পেইজে লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুনসিটিভি নিউজ।। See More =আরো বিস্তারিত জানতে লিংকে ক্লিক করুন=   

(সংবাদটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে দয়া করে ফেসবুকে লাইক বা শেয়ার করুন)
(If you think the news is important, please like or share it on Facebook)
আরো পড়ুনঃ